Place for Advertisement

Please Contact: spbjouralbd@gmail.com

গোবিন্দগঞ্জে কাজী রিয়াজুল: সাঁওতালদের ওপর হামলা মেনে নেওয়া যায় না

গাইবান্ধা প্রতিনিধি, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৬
গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সাঁওতালপল্লী পরিদর্শনকালে মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক বলেছেন, স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে সম্পত্তি রা করার অধিকার রয়েছে সাঁওতালদের। তারাও এ দেশের নাগরিক। তাদের ওপর হামলা, ঘরবাড়ি আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়া, সহায়সম্পদ, লুটপাট, গুলি করে তাদের হত্যার যে ঘটনা ঘটেছে, তা ন্যক্কারজনক ও মানবাধিকারের লঙ্ঘন। এ হামলার ঘটনাকে মেনে নেওয়া যায় না। গতকাল সাঁওতালপল্লী পরিদর্শনকালে মাদারপুর গির্জার সামনে এক সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।
কাজী রিয়াজুল বলেন, ‘সাঁওতালদের অধিগ্রহণ করা জমি চিনিকল কর্তৃপ শর্ত ভঙ্গ করে অনেকের নামে লিজ দিয়েছে। যদি লিজ দিতেই হয়, তাহলে তা পাওয়ার অধিকার সাঁওতালদেরও রয়েছে। কিন্তু তাদের দেওয়া হয়নি কেন? সাঁওতালদের ওপর হামলা ও উচ্ছেদের ঘটনায় সরেজমিন তদন্ত করে আমলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। এ সংক্রান্ত সঠিক তদন্ত প্রতিবেদন সরকার ও সংসদীয় আদিবাসীদের ককাসের কাছে উপস্থাপন করা হবে।
এ সময় তিনি সাঁওতালদের উদ্দেশে বলেন, বাপ-দাদার জমি থেকে আপনাদের উচ্ছেদ করা হয়েছে। এখন আপনারা সকলে জীবন ও জানমালের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। এখনো জীবন রার্থে আপনারা তীর-ধনুক ও লাঠি হাতে পাহারা দিচ্ছেন। তবে আপনারা আইন নিজের হাতে তুলে নেবেন না। যারা আইন হাতে তুলে নিয়েছে, আপনাদের উচ্ছেদ করেছে, তাদের বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা উচিত।
সকাল সাড়ে ৯টায় জাতীয় মানবাধিকার কমিশন, আধিবাসীবিষয়ক সংসদীয় কমিটির ককাস কমিটি ও ইউএনডিপির ১০ জনের একটি প্রতিনিধি দল তিগ্রস্ত মাদারপুর ও জয়পুর সাঁওতালপল্লী ঘুরে দেখেন এবং তিগ্রস্ত সাঁওতালদের খোঁজখবর নেন।
সমাবেশ শেষে মাদারপুর গির্জার ভেতরে তিগ্রস্ত ৫ পুরুষ ও ৫ নারী সাঁওতালের কাছ থেকে ঘটনার বর্ণনা ও তাদের স্যাগ্রহণ করে প্রতিনিধি দলটি। পরে প্রতিনিধি দলের সদস্যরা গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন।
১০ সদস্যের প্রতিনিধি দলে ছিলেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক, পরিচালক (তদন্ত ও অভিযোগ) শরিফ উদ্দিন, উপ-পরিচালক মো. আশিক, আদিবাসীবিষয়ক সংসদীয় কমিটির ককাস কমিটির আহ্বায়ক সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা, সংসদ সদস্য টিপু সুলতান, অধ্যাপক মেজবাহ কালাম, একেএম ফজলুল হক ও ইউএনডিপির চিফ টেকনিশিয়ান শর্মিলা রাসুল, প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর তাসরিমা নাসরিন প্রমুখ।
এর আগে সাঁওতালরা তীর-ধুনক ও লাঠি হাতে নিয়ে বাপ-দাদার জমি ফেরত ও হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবিতে বিােভ মিছিল বের করে। মিছিলটি জয়পুর ও মাদারপুরপল্লী প্রদণি করে মাদারপুর গির্জার সামনে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে তারা সমাবেশে অংশ নেয়।
http://www.dainikamadershomoy.com/todays-paper/more-news/52965/%E0%A6%B8%E0%A6%BE%E0%A6%81%E0%A6%93%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A6%A6%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%93%E0%A6%AA%E0%A6%B0-%E0%A6%B9%E0%A6%BE%E0%A6%AE%E0%A6%B2%E0%A6%BE-%E0%A6%AE%E0%A7%87%E0%A6%A8%E0%A7%87-%E0%A6%A8%E0%A7%87%E0%A6%93%E0%A7%9F%E0%A6%BE-%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A7%9F-%E0%A6%A8%E0%A6%BE

Share on Google Plus

About Tudu Marandy and all

0 comments:

Post a Comment