Place for Advertisement

Please Contact: spbjouralbd@gmail.com

বিআইডিএসের জরিপ: সমতলের চেয়ে পাহাড়ের বাসিন্দারা বেশি গরিব

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট:
সমতলে বসবাসকারী আদিবাসী ও উপজাতীয় জনগোষ্ঠী পরিবারের চেয়ে পার্বত্য অঞ্চলে বসবাসকারী পরিবারগুলো অনেক বেশি গরিব। পার্বত্য অঞ্চলে বাস করা আদিবাসী ও উপজাতীয় জনগোষ্ঠী পরিবারের ৫১ দশমিক ১ শতাংশ গরিব। সেখানে সমতলে বসবাসকারী একই জনগোষ্ঠীর ৩৫ শতাংশ গরিব। এমন তথ্য বেরিয়ে এসেছে সাম্প্রতিক এক জরিপে।
বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান (বিআইডিএস) ‘আদিবাসী ও উপজাতীয় জনগণের দক্ষতা ও কর্মসংস্থান’বিষয়ক এ জরিপটি করেছে। সুইস এজেন্সি ফর ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড কো-অপারেশন (এসডিসি) এবং আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) সহায়তায় এ জরিপটি পরিচালনা করা হয়। গতকাল বুধবার দুপুরে বিআইডিএসের সম্মেলনকক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে এ জরিপ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে।
জরিপ প্রতিবেদনের তথ্য-উপাত্ত পর্যালোচনা করে বলা হয়েছে, আদিবাসী ও উপজাতীয় জনগোষ্ঠীর জন্য উৎপাদনশীল কর্মসংস্থানের সুযোগ বাড়ানো জরুরি। কারণ এসব জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থানের ঘাটতি রয়েছে।
জরিপের তথ্য অনুযায়ী, পার্বত্য অঞ্চলে বসবাসকারী পরিবারগুলোর বার্ষিক গড় আয় ১ লাখ ৬৪ হাজার ৬৯৬ টাকা। সেখানে সমতলে বার্ষিক এই গড় আয় ১ লাখ ৬৫ হাজার ১০ টাকা। অর্থাৎ আয়ের দিক থেকে পাহাড় ও সমতলে বসবাসকারী আদিবাসী ও উপজাতীয় জনগোষ্ঠীর মধ্যে খুব বেশি পার্থক্য নেই। তবে খরচের দিক থেকে বেশ পার্থক্য রয়েছে।
জরিপ প্রতিবেদনের ফলাফল অনুযায়ী, খাদ্য ও খাদ্যবহির্ভূত পণ্য খাতে পার্বত্য এলাকায় বার্ষিক গড় ব্যয় বা খরচ করে ১ লাখ ৪০ হাজার ৭২৪ টাকা। সমতলে যার পরিমাণ ৯১ হাজার ৬৪১ টাকা। অর্থাৎ পার্বত্য এলাকায় বসবাসকারী একটি পরিবারকে খাদ্য ও খাদ্যবহির্ভূত অন্যান্য পণ্য খাতে বছরে যে টাকা খরচ করতে হয়, তা সমতলে বসবাসকারী আদিবাসী ও উপজাতীয় জনগোষ্ঠীর চেয়ে প্রায় ৫০ হাজার টাকা কম।
প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নববিক্রম কিশোর ত্রিপুরা, বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইজারল্যান্ডের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স সিরোকো মেসেরিলি, বিআইডিএসের মহাপরিচালক কে এ এস মুরশিদ, আইএলও বাংলাদেশের ডেপুটি কান্ট্রি ডিরেক্টর গগন রাজভান্ডারি প্রমুখ।
নববিক্রম কিশোর ত্রিপুরা তাঁর বক্তব্যে বলেন, এ ধরনের জরিপ আদিবাসী ও উপজাতীয় জনগোষ্ঠীর জীবনমানের হালনাগাদ তথ্য তুলে ধরে। সরকারের নীতি গ্রহণের ক্ষেত্রে এসব তথ্য-উপাত্তকে কাজে লাগানোর সুযোগ রয়েছে।
সুইজারল্যান্ডের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স সিরোকো মেসেরিলি বলেন, চট্টগ্রামের পার্বত্য অঞ্চলে বসবাসকারী আদিবাসী ও উপজাতীয় জনগোষ্ঠীসংক্রান্ত বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত ও পর্যালোচনার সুযোগ রয়েছে। কিন্তু সমতলে বসবাসকারী এসব জনগোষ্ঠী সম্পর্কে খুবই সামান্য জানা যায়। এ কারণে তুলনামূলক আর্থসামাজিক অবস্থা জানতে আগ্রহী সুইজারল্যান্ডের প্রতিষ্ঠান এসডিসি। পিছিয়ে পড়া এসব জনগোষ্ঠীর দক্ষতা বৃদ্ধিতেও নীতিনির্ধারকদের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন।
জরিপের তথ্য বলছে, সমতলে বসবাসকারী আদিবাসী ও উপজাতীয় জনগোষ্ঠীর ৭০ শতাংশই আয়ের জন্য কৃষিশ্রমের ওপর নির্ভরশীল। সেখানে পার্বত্য অঞ্চলে এ হার ৬৩ শতাংশ।

Source: http://www.prothom-alo.com/
Share on Google Plus

About Tudu Marandy and all

0 comments:

Post a Comment