Place for Advertisement

Please Contact: spbjouralbd@gmail.com

আদিবাসী ভূমি আইন; আমলা ও বিশেষ পোশাকধারীদের বাধা বললেন রাশেদ খান মেনন

আচিক নিউজ ডেস্ক: আদিবাসীদের ভূমি আইন প্রণয়নের পথে আমলা ও বিশেষ পোশাকধারীদেরকে প্রধান বাধা হিসেবে চিহ্নিত কেরছেন বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন। গতকাল ২৩ অক্টোবর রাজধানীর নটরডেম কলেজ অডিটরিয়ামে গারো স্টুডেন্ট ইউনিয়ন ঢাকা মহানগর শাখা আয়োজিত নবীন বরণ ও কৃতি শিক্ষার্থী সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।
তিনি গারো শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ‘আমি জানি ভূমি আইনটি তোমাদের কাছে খুব স্পর্শকাতর বিষয়। আইনটি যে কতবার সংসদে উঠছে-নামছে এবং কতবার যাচাই-বাছাই করার জন্য পাঠানো হচ্ছে এর কোনো সীমা-পরিসীমা নাই।’ তিনি বিষ্ময় প্রকাশ করে বলেন, ‘আমরা নিজেরাই অবাক হয়ে যাই, যেখানে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত খোদ প্রধানমন্ত্রী নিচ্ছেন, খোদ মন্ত্রী নিচ্ছেন, খোদ নেতৃবৃন্দ দিচ্ছেন সেখানে কয়েকজন আমলা, কয়েকজন পোশাকধারী ব্যক্তি সমাধানের পথকে রুদ্ধ করে ফেলছেন।’
‘অধিকার আদায়ে বাধাবিঘ্ন পেরোতে হবে’ জানিয়ে রাশেদ খান মেনন গারো শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে আরও বলেন, ‘অধিকার আদায় খুব সহজ পথে হবে তা ভাবলে হবে না। শান্তিপূর্ণভাবে, ঐক্যবদ্ধভাবে, বাঙালী-আদিবাসী এক হয়ে অধিকার আদায় করতে হবে।’
২০১০ সালের ফেব্রুয়ারিতে রাশেদ খান মেননকে আহ্বায়ক করে ১১ সংসদ সদস্যকে নিয়ে আদিবাসী বিষয়ক সংসদীয় ককাস গঠন করা হয়েছিল। বিষয়টি উল্লেখ মন্ত্রী বলেন, ‘সংসদে আদিবাসী ককাসের মাধ্যমে আমরা আদিবাসীদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। আনন্দের সংবাদ হচ্ছে, ইতোমধ্যে আদিবাসী অধিকার আইন পঠিত হয়েছে। শীঘ্রই বেসরকারি বিল হিসেবে এটি সংসদে যাবে। এটি সংসদে আলোচিত হলে ও গৃহীত হলে বড় পরিবর্তন আসবে।’ এর আগেও, ২০১৩ সালের ২২ জুলাই আদিবাসীদের অধিকার রক্ষায় ‘আদিবাসী অধিকার আইন’ বিল আকারে পরের সংসদীয় অধিবেশনে উত্থাপন করা হবে বলেও জানিয়েছিলেন মন্ত্রী। কিন্তু বিভিন্ন জটিলতায় সে প্রক্রিয়া থেমে গিয়েছিল।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রাজীব মীর বলেন, ‘যে বৃহৎ বাঙালী জাতিগোষ্ঠীতে আমরা বসবাস করছি, সেখানে আমরা প্রতিনিয়তই ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জাতিকে এড়িয়ে যাই। কিন্তু এর বাইরে এসে তাদের প্রাপ্য অধিকার বাস্তবায়ন করতে হবে।’
অনুষ্ঠানে দ্রিঞ্জা চাম্বুগংকে সভাপতি, টনি চিরানকে সাধারণ সম্পাদক, বিবাল মানকিনকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে গারো স্টুডেন্টস ইউনিয়নের ঢাকা মহানগর শাখার তিন সদস্যবিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়। নবনির্বাচিত সভাপতি দ্রিঞ্জা চাম্বুগং অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

Source: http://www.achiknews24.com/%E0%A6%86%E0%A6%A6%E0%A6%BF%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%B8%E0%A7%80-%E0%A6%9B%E0%A6%BE%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%B0-%E0%A6%B8%E0%A6%99%E0%A7%8D%E0%A6%97%E0%A6%A0%E0%A6%A8/%E0%A6%86%E0%A6%A6%E0%A6%BF%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%B8%E0%A7%80-%E0%A6%AD%E0%A7%82%E0%A6%AE%E0%A6%BF-%E0%A6%86%E0%A6%87%E0%A6%A8-%E0%A6%86%E0%A6%AE%E0%A6%B2%E0%A6%BE-%E0%A6%93-%E0%A6%AC%E0%A6%BF/
Share on Google Plus

About Tudu Marandy and all

0 comments:

Post a Comment